ভারতে বিক্ষোভে পুলিশের গুলি, নিহত ১০

ভারতের তামিলনাড়ু রাজ্যে মঙ্গলবার একটি কপার কারখানা বন্ধের দাবিতে বিক্ষোভে গুলি চালিয়েছে পুলিশ। এতে দুই নারীসহ ১০জন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন ৬৫জন। টাইমস অব ইন্ডিয়ার এক প্রতিবেদনে এসব তথ্য দেওয়া হয়েছে।

এদিকে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম এএফপির প্রতিবেদনে ১২জন নিহত হওয়ার তথ্য দেওয়া হয়েছে।

টাইমস অব ইন্ডিয়ার প্রতিবেদনে বলা হয়, দীর্ঘদিন ধরে চলা বিক্ষোভটির ১০০তম দিন ছিল মঙ্গলবার। বিক্ষোভের একপর্যায়ে বিক্ষুব্ধ জনতা পুলিশের গাড়িসহ বিভিন্ন সরকারি স্থাপনায় ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগ করে।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে প্রথমে লাঠিপেটা করে পুলিশ। এরপর গুলি চালালে ১০জন নিহত হয়। আহত হয় ৬৫জন। আহতদের অনেকের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

নিহতদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন তামিল নাড়ুর মুখ্যমন্ত্রী এদাপ্পাদি কে পালানিসামি। সরকারে পক্ষ থেকে নিহতদের পরিবারকে ১০ লাখ রুপি করে সহায়তা দেওয়ার ঘোষণা দেওয়া হয়। এ ছাড়া আহতদের পরিবারকেও অর্থ সহায়তার ঘোষণা দেন মুখ্যমন্ত্রী।

জানা গেছে, গত ফেব্রুয়ারি মাস থেকে চেন্নাই থেকে প্রায় ৬০০ কিলোমিটার দূরে স্টেরলিট কপার কারখানাটি বন্ধের দাবি জানিয়ে আসছে স্থানীয়রা। বার্ষিক চার লাখ টন কপার উৎপাদনে সক্ষম কারখানাটির বিরুদ্ধে পরিবেশ দূষণের অভিযোগ রয়েছে। বিক্ষোভের কারণে গত ৫০ দিনের বেশি সময় ধরে কারখানাটি বন্ধ আছে।

এর আগে ২০১৩ সালে আদালতের নির্দেশে কারখানাটি দুই মাসের বেশি বন্ধ রাখা হয়েছিল। প্রসঙ্গত, কারখানাটি যুক্তরাজ্যভিত্তিক কোম্পানি ভেদানতা রিসোর্সের মালিকানাধীন প্রতিষ্ঠান।

সম্প্রতি স্থানীয় পরিবেশ নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের নিয়ম না মানায় আগামী ৬ জুন পর্যন্ত কারখানাটি বন্ধ রাখার নির্দেশ দেয় আদালত। তবে স্থানীয় বাসিন্দাদের দাবি কারখানাটি যাতে স্থায়ীভাবে বন্ধ করে দেওয়া হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.